ঘুমের ওষুধের নাম ও দাম ২০২৪

ঘুমের ওষুধ, যা হাইপনোটিক্স নামেও পরিচিত, এটি অনিদ্রা চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়। অনিদ্রা হলো ঘুমাতে অসুবিধা, ঘুম ধরে রাখতে অসুবিধা, বা পর্যাপ্ত ঘুম না পাওয়া। যে ব্যক্তি পর্যাপ্ত পরিমাণ না ঘুমায় তার শারীরিক অবস্থা ভালো থাকে না। আপনার যদি ঘুমটি রেস্ট না হয় তাহলে আপনার দিনের বেলায় বিভিন্ন ধরনের খারাপ লাগা অনুভব করতে পারে না।

এ কারণে অনেকেই যাতে রাত্রে ভালো ঘুম হয় তার জন্য ঘুমের ওষুধ খেয়ে থাকে। তো ফার্মেসি থেকে অনেকেই এই ওষুধ কিনে সেবন করে থাকেন। কিন্তু এটি কখনোই উচিত নয়, অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ঘুমের ওষুধ খারাপ প্রয়োজন। তবুও অনেকেই ইন্টারনেটে হোমিও ওষুধের নাম ও দাম কত তা জানতে চায়।

সুতরাং আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে আজকের এই প্রশ্নের মাধ্যমে ঘুমের ওষুধ নিয়ে সাধারণ কিছু বিষয় আলোচনা করার চেষ্টা করব। এই পোস্টের মাধ্যমে আপনি ঘুমের ওষুধ কেন খায়, এই ওষুধ কিভাবে কাজ করে এবং কোন কোন ক্ষেত্রে ঘুমের ওষুধ খাওয়া উচিত নয় এ ধরনের বিষয়গুলো জানতে পারবেন।

ঘুমের ওষুধের নাম

আমরা জানি যে বাংলাদেশে বিভিন্ন ঔষধ কোম্পানি রয়েছে। প্রত্যেকটি কোম্পানি আলাদা আলাদা নামে ঘুমের ওষুধ গুলো বাজারজাত করে থাকেন। যেহেতু আপনি ঘুমের ওষুধের নাম জানতে এসেছেন তাই এ পর্যায়ে আমরা আপনাদের সাথে গ্রুপ ভিত্তিক বিভিন্ন কোম্পানির ঘুমের ওষুধের নাম জানব।

  • বেনজোডায়াজেপাইন:
    • ডায়াজেপাম (Valium)
    • লোরাজেপাম (Ativan)
    • মিডাজোলাম (Versed)
    • টেমাজেপাম (Restoril)
  • অ-বেনজোডায়াজেপাইন:
    • এসজোপিক্লোন (Lunesta)
    • জোলপিডেম (Ambien)
    • জালেপ্লোন (Sonata)
    • রামেলটোন (Rozerem)

ঘুমের ওষুধ কেন খায়

শারীরিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে ঘুমের ওষুধ বিভিন্ন কারণে সেবন করা হতে পারে। অনেকেই অনিদ্রার কারণে ঘুমের ওষুধ খেয়ে থাকে আবার অনেকেই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ ঘুমের ওষুধ জীবনের পরামর্শ দেয়।

  • অনিদ্রা চিকিৎসা: ঘুমের ওষুধ ঘুমাতে সাহায্য করে, ঘুম ধরে রাখতে সাহায্য করে এবং ঘুমের গুণমান উন্নত করে।
  • অন্যান্য শারীরিক সমস্যার চিকিৎসা: ঘুমের ওষুধ উদ্বেগ, বিষণ্নতা, restless legs syndrome, এবং post-traumatic stress disorder-এর মতো অন্যান্য শারীরিক সমস্যার চিকিৎসায় ব্যবহার করা যেতে পারে।

ঘুমের ওষুধ কিভাবে কাজ করে

সাধারণভাবেই আমরা জানি যে ঘুমের ওষুধ খেলে আমাদের ঘুম ভালো হয়। কিন্তু কখনো কি আমরা ভেবে দেখেছি যে ঘুমের ওষুধ আসলে কিভাবে কাজ করে? এটি আমাদের সকলেরই জেনে রাখা উচিত। এটি সাধারণত কয়েকভাবে আমাদের শরীরে রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে কাজ করে থাকে।

  • মস্তিষ্কের রাসায়নিক ভারসাম্য পরিবর্তন করে: ঘুমের ওষুধ মস্তিষ্কের রাসায়নিক ভারসাম্য পরিবর্তন করে, যার ফলে ঘুম পাওয়া সহজ হয়।
  • GABA রিসেপ্টরগুলিকে উদ্দীপিত করে: ঘুমের ওষুধ GABA রিসেপ্টরগুলিকে উদ্দীপিত করে, যা মস্তিষ্কের কার্যকলাপকে ধীর করে দেয় এবং ঘুমকে উৎসাহিত করে।

ঘুমের ওষুধের দাম

কোম্পানি ভেদে বিভিন্ন কোম্পানির ঘুমের ওষুধের দাম একেক রকমের হতে পারে। তবে খুব অল্পমুল্য থেকে শুরু করে মোটামুটি অনেক দামের ঘুমের ওষুধ কিনতে পাওয়া যায়।

  • ঘুমের ওষুধের দাম ব্র্যান্ড, ডোজ এবং ফার্মেসির উপর নির্ভর করে।
  • বাংলাদেশে, ঘুমের ওষুধের দাম প্রায় 10-50 টাকা প্রতি ট্যাবলেট।

ঘুমের ওষুধ সেবনে সতর্কতা

আপনি চাইলেই যে কোন সময় যেকোনো ধরনের রকমের ওষুধ সেবন করতে পারেন না। কারণ এটি উপকারের চেয়ে আপনার শরীরে ক্ষতি বেশি করতে পারে। এজন্য অবশ্যই ঘুমের ওষুধ সেবনের পূর্বে ডাক্তার দেখানো উচিত। এছাড়াও অবশ্যই আরো বেশ কিছু সতর্কতা আমাদেরকে অবলম্বন করতেই হবে।

  • ঘুমের ওষুধ ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।
  • ঘুমের ওষুধ দীর্ঘ সময় ধরে ব্যবহার করা উচিত নয় কারণ এটি অভ্যাসের দিকে নিয়ে যেতে পারে।
  • ঘুমের ওষুধ গর্ভবতী বা স্তন্যদানকারী মহিলাদের জন্য উপযুক্ত নয়।
  • ঘুমের ওষুধ কিছু ঔষধের সাথে বিক্রিয়া করতে পারে।
  • ঘুমের ওষুধ গ্রহণের সময় প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া:

  • ঘুমের ওষুধের কিছু সাধারণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হল:
    • তন্দ্রা
    • মাথা ঘোরা
    • বমি বমি ভাব
    • ডায়রিয়া
    • মাথাব্যথা

সর্বশেষ কথা

আপনি যদি মনে করে থাকেন যে রাত্রে বেলা আপনার স্বাভাবিক বোম হচ্ছে না তাহলে অবশ্যই আপনি কোন বিষয়ে চিন্তিত কিনা তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন। সব সময় নিজেকে দুশ্চিন্তা মুক্ত রাখার চেষ্টা করবেন। তাহলেই আপনারা স্বাভাবিক ঘুম হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যাবে। আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের সাথে ঘুমের ওষুধের নাম ও দাম কত তা জানানোর চেষ্টা করেছিলাম।