চোখ উঠলে করণীয় কি

প্রত্যেকটা মানুষের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের মধ্যে চোখ একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। কারণ আমাদের চলাফেরা এবং কোন কিছু দেখতে হলে চোখ দিয়ে দেখতে হবে। চোখ ছাড়া দুনিয়া একেবারে অন্ধকার। এজন্য চোখের কোন সমস্যা হলে অতি দ্রুত সমাধান করা উচিত। অনেকেরই হঠাৎ করে চোখ লালচে রঙের হয়ে যায়। এই সমস্যার রোগ চোখ উঠা রোগ নামে পরিচিত।

কিছু সময় চোখে ভাই*রাস আক্রমণ করে। এ কারণে চোখের সাদা অংশটুকু লাল হয়ে যায়। চোখে যে কোন সমস্যার এবং রোগ দেখা এই অতি দ্রুত সমাধান নিতে হবে। কারণ অতিরিক্ত রোগ বেড়ে গেলে আপনার চোখে অনেক বেশি ক্ষতি হতে পারে। যারা এই সমস্যায় ভুগছেন তারা আমাদের এই পোষ্ট পড়লে চোখ উঠলে করণীয় কি সে তথ্য গুলো জানতে পারবেন।

চোখ উঠলে করণীয় কি

মানুষ বেঁচে থাকলে সব মানুষেরই কোন না কোন রোগ দেখা যায়। আপনার যদি চোখ উঠার সমস্যা হয় তাহলে আমাদের এই নিয়ম ফলো করলে খুব দ্রুত রোগ নিরাময় হয়ে যাবে। এজন্য আপনাকে কিছু সঠিক নিয়ম কানুন মানতে হবে এবং ঔষধ সেবন করতে হবে। চোখে জ্বালাপোড়া করা, চোখ দিয়ে পানি পড়া এবং চোখ লালচে রঙের হয়ে যাওয়া এগুলো হলো চোখে ভাই*রাস আক্রমণ করার ফলে হয়। দেখে নিন চোখ উঠলে কি করলে অতি দ্রুত চোখের সমস্যা ভালো হয়ে যাবে।

  • কোন কারনে আপনার চোখ দিয়ে পানি পড়লে অথবা চোখ ভেজা থাকলে পরিষ্কার টিস্যু দ্বারা চোখ  মুছে ফেলতে হবে।
  • রাস্তাঘাটে ধুলাবালি থেকে রক্ষা পেতে এবং কি চোখে যেন হাত না লাগে এজন্য চোখে চশমা ব্যবহার করতে হবে।
  •  বিশুদ্ধ সাবান দিয়ে কিছুক্ষণ পর পর হাত পরিষ্কার রাখতে হবে।
  •  চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী এন্টিবায়োটিক ড্রপ সহ ওষুধ সেবন করতে হবে।
  •  নিজের ব্যবহার করা কোন পোশাক অথবা অন্য কোন জিনিস কাউকে ব্যবহার করতে দেওয়া যাবে না। আপনার ব্যবহার করা জিনিস থেকে ভাই*রাস অন্য জনের সাথে সংক্রমণ হতে পারে।
  •  ভিটামিন সি এর পাশাপাশি সুষম খাবার দিনের খাবারের তালিকায় রাখু*ন।
  •  এ সময়ে বাইরে ঘোরাফেরা না করে পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রামে থাকুন।

চোখ উঠলে ঔষধ

আপনার চোখ উঠার সমস্যা হলে এন্টিবায়োটিক ড্রপ দিনে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করলে কয়েক দিনের মধ্যেই আপনার চোখ উঠার সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। এই ড্রপে চোখে লালচে রং হওয়া চোখ দিয়ে পানি পড়া এবং চোখে চুলকানি থেকে রক্ষা করবে।

  1. চোখ উঠার বিভিন্ন সমস্যার জন্য এন্টিবায়োটিক ড্রপ ক্লোরামফেনিকল ব্যবহার করলে অল্প কিছুদিনের মধ্যে আপনার চোখ উঠার সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।
  2. আর্টিফিশিয়াল টিয়ার: আপনার চোখে খসখসে এবং চোখ উঠার রোগ নিরাময় করতে যেকোন ফার্মেসি থেকে ড্রাই লাইফ, লুব জেল, টিয়ার ফ্রেশ এগুলা জেল ডাক্তারের নির্দেশন অনুযায়ী ব্যবহার করলে অল্প কিছুদিনের মধ্যে আপনার চোখ সতেজ এবং ভালো হয়ে যাবে।

চোখ উঠলে কোন ড্রপ দিতে হয়

আপনার চোখ উঠার সমস্যা হলে অবশ্যই এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করতে হবে। এবং চোখ উঠার সমস্যার জন্য অয়েন্টমেন্ট ব্যবহার করা যায়। এজন্য আগে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। দুই বছরের বেশি শিশুদের জন্য অথবা প্রাপ্তবয়স্ক লোকদের জন্য এন্টিবায়োটিক (ক্লোরামফেনিকল) ড্রপ ব্যবহার করতে হবে। যেকোনো ডাক্তারের ঘরে থেকে এই ড্রপ অথবা অয়েন্টমেন্ট সংগ্রহ করতে পারবেন।

চোখ উঠলে কি কি খাওয়া যাবে না

আপনার চোখের কোন সমস্যা হলে অবশ্যই কিছু খাবার খাওয়া যাবেনা। কারণ এই খাবারগুলো খেলে চোখের চুলকানি এবং লালচে রং আরও বেড়ে যাবে। বিশেষ করে কোন এলার্জি জাতীয় খাবার খাওয়া যাবে না। যেমনঃ পুইশাক, বেগুন, চিংড়ি মাছ, ইলিশ মাছ, সিম, মসূরের ডাল, মিষ্টি লাউ  ইত্যাদি। চোখ উঠলে এই খাবারগুলো থেকে বিরত থাকবেন।

চোখ উঠার ড্রপ এর নাম

আপনার চোখ উঠলে এন্টিবায়োটিক (ক্লোরামফেনিকল) ড্রপ দিনে তিন থেকে চারবার ব্যবহার করলে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই চোখের সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। এই ড্রপ টি দুই বছরের উপরে শিশুদের এবং প্রাপ্তবয়স্কদের ব্যবহারের জন্য প্রযোজ্য। কোনোভাবেই দুই বছরের কম শিশুদের চোখে এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করা যাবে না। তাহলে বড় ধরনের সমস্যা হতে পারে। অবশ্যই নিকটস্থ কোন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে এটা ব্যবহার করতে হবে।

চোখ উঠলে ঘরোয়া চিকিৎসা

ঘরোয়াভাবে চোখ উঠার চিকিৎসা করলে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই আপনি অনেকটাই আরাম পাবেন। প্রথমত চোখে সরাসরি হাত লাগানো যাবে না। গরম পানি ঠান্ডা করে নরম কাপড় ভিজিয়ে চোখ মুছতে হবে। সব সময়ই চোখের জন্য আলাদা একটি কাপড় ব্যবহার করতে হবে।

এই কাপড় ব্যবহার করা হয়ে গেলে নির্দিষ্ট একটি জায়গায় রাখতে হবে কেননা অন্য কেউ এ কাপড় ব্যবহার করলে তারও এই ভাই*রাস আক্রমণ করতে পারে। এবং সব সময় সাবান দ্বারা হাত পরিষ্কার রাখতে হবে। সর্বশেষ আপনি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চোখের এন্টিবায়োটিক ড্রপ ব্যবহার ব্যবহার করবেন।

শেষ কথা

আমাদের অনেক সময়ে অজান্তে চোখে ভাই*রাস আক্রমণ করে। এ ভাই*রাস আক্রমণ করার ফলে চোখে চুলকানি সহ চোখের সাদা অংশ লাল হয়ে যায় এবং চোখ দিয়ে পানি পড়ে এই সমস্যাটা আমরা চোখ উঠা বলে থাকি। এই পোষ্ট পড়লে চোখ উঠলে কি ড্রপ দিতে হবে এই তথ্যগুলো উল্লেখ করেছি। আশা করি আপনি আমাদের সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ে চোখ উঠলে করণীয় কি এ তথ্য জানতে পেরেছেন। ধন্যবাদ